কিউবা টুরিস্ট ভিসা ২০২৩

কিউবা টুরিস্ট ভিসা ২০২৩

লাতিনা
আমেরিকার চারপাশে সাগর বেষ্টিত দেশটির নাম হল কিউবা। আয়তনের দিক থেকে বাংলাদেশের থেকে অনেক ছোট হলেও  দেশটিতে
হাজারের অধিক দীপ রয়েছে। টুরিস্ট আকর্ষণের সব থেকে বড়
মাধ্যম হল সারা দেশের
ছড়িয়ে থাকা এই দ্বীপগুলো। প্রতিবছর
প্রায় মিলিয়ন টুরিস্ট
কিউবা ভ্রমণ করে থাকে। এবং কিউবার অর্থনীতির একটি বড় অংশ আসে পর্যটন খাত থেকে।
 
ভ্রমন করার জন্য লাতিন
আমেরিকার সেরা একটি দেশ হলো কিউবা। এবং সেই কারণেই ইউরোপ এবং এশিয়া মহাদেশ থেকে বিপুল পরিমাণ পর্যটন আসে দ্বীপে ঘেরা এই দেশটিতে। যদিও
দেশটিতে ভ্রমণ করাটা একটু অসুবিধা জনক, কারণ বছরের প্রায় বেশিরভাগ সময়ে এখানে বৃষ্টিপাত হয়ে থাকে।

কিউবা ট্যুরিস্ট ভিসা ২০২৩

আজকে আমরা আপনাদের সঙ্গে কেউবা টুরিস্ট ভিসা ২০২৩ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। এখান থেকে আপনারা কিউবা সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য পেয়ে যাবেন। আপনি যদি একজন ভিজিটর হয়ে থাকেন তাহলে আজকের এই কনটেন্ট আপনার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আমরা চেষ্টা করেছি সম্পূর্ণ সঠিক তথ্য দেওয়ার।

আজকের এই কনটেন্ট থেকে আপনারা জানতে পারবেন। কিউবা যেতে কত টাকা লাগে। দর্শনীয় স্থানসমূহের নাম। আবেদন করার নিয়ম, ভিসা আবেদন ফি কত, কি কি ডকুমেন্টস প্রয়োজন হয় ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিউবা সম্পর্কে এই সকল তথ্যগুলো।

কিউবার দর্শনীয় কিছু স্থান

কিউবা ভ্রমণ করার জন্য অনেক সুন্দর একটি দেশ। এখানে প্রতিবছর বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক ভিজিটর এসে থাকেন ভ্রমণ করার উদ্দেশ্য নিয়ে। কেউবাতে অনেক দর্শনীয় স্থান রয়েছে সেই সকল স্থানগুলোর মধ্য থেকে আমরা কয়েকটি দর্শনীয় স্থান এর নাম উল্লেখ করলাম। আপনি যদি কেউ বা টুরিস্ট ভিসা নিয়ে যেতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে এই সকল জায়গাগুলো ভ্রমণ করতে একেবারে ভুলবেন না। আশা করি আপনাদের অনেক ভালো লাগবে।

  •  প্লেস ডেল স্টে
  •  মাতানজাস
  •  লাস  টেরাজাস
  •  ইউমুড়ি উপত্যকা
  •  কিউবাতে সাইক্লিন ভ্রমণ
  •  রেভালোচিন
  •  এল মালেকিন
  •   সান্টিয়াগো


কিউবা ভিসা আবেদনের নিয়ম

বাংলাদেশ থেকে কেউবা ভিসা প্রসেসিং করা বেশ জটিল। বাংলাদেশ থেকে কেউবা যেতে হলে ভারতের মাধ্যমে ভিসা আবেদন করতে হয়। ভারতের নয়াদিল্লিতে কিউবা দূতাবাস অবস্থিত। এক্ষেত্রে আপনি বাংলাদেশী বেশ কিছু এজেন্সির সহায়তা নিতে পারেন। উক্ত এজেন্সি গুলো আপনাকে ভিসা আবেদন থেকে শুরু করে ভ্রমণ সংক্রান্ত যাবতীয় সকল কিছুর দায়িত্ব নেবে।
 
 ভিসা আবেদন করার লিংক–  https://cibtvisas.com/destination/cub/cuba-visa

 
কিউবা টুরিস্ট ভিসা ২০২৩


কিউবা টুরিস্ট ভিসায় কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন

যে কোন ভিসা তৈরি করার ক্ষেত্রেই অনেক রকম কাগজপত্র এর প্রয়োজন হয়ে থাকে। কিউবা ভিসার জন্য এর ব্যতক্রম নয়। এই ভিসা নিতে হলেও আপনাকে বেশ কিছু কাগজপত্র প্রদান করতে হবে বা প্রয়োজন হবে। কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন তা নিচে উল্লেখ করা হলো।

  • একটি বৈধ পাসপোর্ট (কমপক্ষে
    ছয় মাস মেয়াদ থাকতে হবে)
  •  সদ্য নতুন তোলা দুইটি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
  •  নিশ্চিতকরণসহ একটি রিটার্ন
    এয়ারলাইন্স টিকেট
  •  কোভিড 19 সার্টিফিকেট
  •  প্রাথমিক ভিসা আবেদন ফরম
  •  নতুন দম্পতি হলে, বিবাহের সনদপত্রের ফটোকপি।
  •  সঙ্গে নাবালক থাকলে,  তার
    জন্ম সনদপত্রের পত্রের ফটোকপি


ভিসা
প্রক্রিয়াকরণের
সময়

নয়াদিল্লি থেকে কিউবা ভিসা আবেদন করার পর থেকে প্রায়
তিন সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। এক্ষেত্রে সকল কাগজপত্র যদি সঠিক এবং নির্ভুল থাকে তাহলে এক সপ্তাহের মধ্যেও
ভিসা তৈরি হওয়া সম্ভব। তবে মনে রাখতে হবে যে নয়া দিল্লি
থেকে তিন সপ্তাহ সময় লাগলেও ঢাকা থেকে নয়া দিল্লি পর্যন্ত প্রসেসিং হতে আরো এক সপ্তাহ সময়
বেশি লাগবে।
 

কিউবা ভিসা নিয়ে সাবধানতা

শুরুতেই আপনাকে সতর্ক থাকতে হবে যে আপনি যেন
কোন প্রকার প্রতারকের ফাঁদে না পড়েন। 
যেহেতু ভিসা প্রক্রিয়া তৃতীয় একটি দেশের মাধ্যমে সম্পন্ন হচ্ছে। এছাড়াও সাবধান থাকতে হবে যে কিউবা দেশটিতে
বছরের বেশিরভাগ সময় বৃষ্টিপাত হয়, এক্ষেত্রে শারীরিকভাবে নিজেকে সুস্থ রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ।


জেনে রাখা ভালো যে কিউবার অধিকাংশ
মানুষ খ্রিষ্টান। দেশটির প্রায় ২৩ শতাংশ মানুষ
কোন ধর্মে বিশ্বাসী না। এবং তাদের সংস্কৃতি এবং খাদ্যাভাস সম্পূর্ণ ভিন্ন প্রকৃতির।   তাই
আপনি মুসলিম হলে অবশ্যই সেখানকার বাসস্থান এবং খাবার সম্পর্কে আপনাকে বেশ সাবধান থাকতে হবে।

Leave a Comment