বায়োমেট্রিক কি? কত প্রকার এবং সুবিধা অসুবিধা

বায়োমেট্রিক কি?

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা আমাদের ওয়েবসাইটে তোমাদের সবাইকে শুভেচ্ছা জানাই। প্রতিদিনের মতো আজকে আবারও আমরা টেকনোলজি বিষয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি। আজকের আলোচনার বিষয়বস্তু বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতি। বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতি ছাড়া আরো অন্যান্য বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন।

বায়োমেট্রিক কি

Bio গ্রিক শব্দ যার অর্থ প্রাণ ও Metric যার অর্থ পরিমাপ করা। বায়োলজিক্যাল জৈব ডেটা পরিমাপ ও বিশ্লেষণ করার প্রযুক্তিতে বায়োমেট্রিক বলে। বায়োমেট্রিক্স এমন একটি পদ্ধতি যা কোন ব্যক্তির শরীরবৃত্তীয় অথবা আচরণগত বৈশিষ্ট্যের উপর নির্ভর করে অদ্বিতীয়ভাবে চিহ্নিত এবং সনাক্ত করে থাকে।

বায়োমেট্রিক পদ্ধতি কি?

বায়োমেট্রিক পদ্ধতি হচ্ছে এমন একটি পদ্ধতি যে পদ্ধতির মাধ্যমে কোন ব্যক্তির আচরণগত ও উভয় বৈশিষ্ট্যকে ইনপুট হিসেবে গ্রহণ করে। এটি বিশ্লেষণ করার পরে প্রকৃত ব্যবহারকারী হিসেবে অদ্বিতভাবে চিহ্নিত করে। মূলত বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতি এভাবেই কাজ করে থাকে।
প্রত্যেকটি মানুষের বৈশিষ্ট্য গুলো ভিন্ন রকম হয়ে থাকে। বায়োমেটিক্স পদ্ধতির মাধ্যমে খুব সহজেই ব্যক্তিদের সনাক্ত করা সম্ভব। বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতির ডেটা গুলোকে মূলত দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। যেমন,

শরীরবৃত্তি বৈশিষ্ট্য

শরীরবৃত্তীয় বৈশিষ্ট্য গুলোর মধ্যে যে সকল বায়োমেট্রিক পদ্ধতি গুলো উল্লেখিত তা হলঃ-

  1. ফেইস
  2. ফিঙ্গারপ্রিন্ট
  3. আইরিস এবং রেটিনা
  4. ডি এন এ
  5. হ্যান্ড জিওমেট্রি

আচরণগত বৈশিষ্ট্য

  1. ভয়েস
  2. টাইপিং কিস্টক
  3. সিগনেচার

বায়োমেট্রিক্স এর উপাদান

বায়োমেট্রিক এর উপাদান বেশ কয়েক রকম রয়েছে। যে সকল পদ্ধতিতে বায়োমেট্রিক ব্যবহার করা হয় সেই সকল বায়োমেটিক্স উপাদান এর কিছু নাম এবং তা সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরা হলো।

ডিএনএ টেস্ট

প্রত্যেকটি মানুষের ডিএনএ তে আলাদা আলাদা রকমের বৈশিষ্ট্য বা জিনগত উপাদান থাকে। যে সকল উপাদান গুলো কোন ব্যক্তির সঙ্গে মেলে না। ডিএলএ টেস্ট মানুষের শরীরের বিভিন্ন অংশের মাধ্যমে চেক করা সম্ভব। যেমন, রক্ত, আঙ্গুলের নখ, চুল, রক্তের দাগ, মুখের ত্বক, লালা ইত্যাদি।

ভয়েস রিকগনিশন

ভয়েস রিকগনেশন ও বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতির একটি অংশ। ভয়েস রিকগনেশন পদ্ধতিতে প্রথমে ভয়েস ডিটাবেজে সংরক্ষণ করে রাখা হয়। পরবর্তীতে এই ভয়েস যে ব্যক্তির সঙ্গে মিলে তাকে এক্সেস করতে খুব সহজে পারা যায়।

ফিঙ্গারপ্রিন্ট

ফিঙ্গারপ্রিন্ট খুবই জনপ্রিয় একটি বায়োমেটিক্স পদ্ধতি। আমরা অনেক ক্ষেত্রে বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন জায়গায় ফিঙ্গারপ্রিন্ট দিয়ে থাকি। যা বায়োমেট্রিক্স এর একটি উপাদান। আমরা যেই স্মার্টফোন ব্যবহার করি। সেই স্মার্টফোনে ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট এর ব্যবস্থা রয়েছে। এই ফিঙ্গারপ্রিন্ট ও বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতির মধ্যে পড়ে।

আইরিস

আইরিস পদ্ধতিতে বর্তমান সময়ে মানুষ শনাক্ত করা সবচেয়ে আদর্শ অঙ্গ। একজন ব্যক্তির আইরিস কখনো অন্য ব্যক্তির সঙ্গে মিলবে না। আইরিস মাধ্যমে ব্যক্তি সনাক্ত করতে হলে সে ব্যক্তিকে কম্পিউটারের সামনে দাঁড়াতে হবে। অতঃপর বোঝা যাবে তার সম্পর্কে।

বায়োমেট্রিক্স এর কাজ কি?

এই পদ্ধতিটির মূল কাজ কোনো ব্যক্তিকে অদ্বিতীয় ভাবে সনাক্ত করা। কোন ব্যক্তির ব্যক্তিগত বৈশিষ্ট্য গুলোকে ডিজিটাল করে রূপান্তরিত করে বায়োমেট্রিক্স ডিভাইসে রাখা হয়। পরবর্তীতে এই সংরক্ষিত কোড গুলোর সাথে মিল করে যে মানুষ বা যার ব্যক্তিগত তথ্য মিলে যাই। তখন সেই ব্যক্তিকে সনাক্ত করা যায়।
বায়োমেট্রিক কি?

বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতির সুবিধা ও অসুবিধা

যে কোনো কিছুর কিছু ভালো দিক এবং কিছু মন্দ দিক রয়েছে। তেমনিভাবে বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতির ও কিছু সুবিধা রয়েছে আবার কিছু অসুবিধা রয়েছে। বায়োমেটিক্স পদ্ধতির সুবিধা এবং অসুবিধা দুইটি আলাদা ভাবে উল্লেখ করা হলো।

বায়োমেট্রিক্স এর সুবিধা

  • বায়োমেট্রিক্স ভুলে যাওয়া বা হারিয়ে যাওয়া সম্ভব নয়। কারণ বায়োমেট্রিক্স সব সময়ই মানুষের সঙ্গে থাকে।
  • বায়োমেট্রিক্স জাল করা অথবা চুরি করা অনেক বেশি কঠিন।
  • বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতিতে প্রত্যেকে আলাদাভাবে সনাক্ত করা যায় খুব সহজেই।
  • ব্যবহার করা অত্যন্ত সহজ এবং দ্রুত সময়ে হয়ে থাকে।

বায়োমেট্রিক্স এর অসুবিধা

  • নিরাপত্তার জন্য বায়োমেট্রিক্স অনেক উল্লেখযোগ্য।
  • এই পদ্ধতিতে ফেসিয়াল রিকগনিশন সিস্টেম যারা ব্যবহার করে তাদের জন্য গোপনীয়তা সীমিত করে।
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট এর সমস্যা দেখা দেয় অনেক সময়।

বায়োমেট্রিক্স কোথায় ব্যবহৃত হয়

এই পদ্ধতিটি বেশ অনেক ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। যে সকল ক্ষেত্রে বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতি প্রয়োগ করা হয়। সেই সকল ক্ষেত্রগুলো সম্পর্কে সামান্য তথ্য এবং তার নাম নিচে উল্লেখ করা হলো।

স্মার্ট ফোন

বর্তমান সময়ে আমরা স্মার্ট ফোনগুলোতে বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতির ব্যবহার দেখতে পাই। কোন ফোনে ডিসপ্লের উপর ফিঙ্গারপ্রিন্ট সিস্টেম থাকে এটা বায়োমেটিক্স পদ্ধতি। কোন ফোনে সাইট বাড়ে ফিঙ্গারপ্রিন্ট থাকে।
আবার কোন ফোনে ব্যাকপাশে ফিঙ্গারপ্রিন্ট এর ব্যবস্থা থাকে। মূলত এই সকল ফিঙ্গারপ্রিন্ট গুলো বায়োমেট্রিক্স এর মধ্যে পড়ে। প্রতিটি স্মার্টফোনের বর্তমান সময়ে বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতির ব্যবহার হয়ে থাকে সিকিউরিটির জন্য।

সিম নিবন্ধন

আমরা সকলেই সিম ব্যবহার করে থাকি। স্মার্ট ফোন অথবা বাটন ফোন এ সিম ব্যবহার করি বিভিন্ন ক্ষেত্রে। কিন্তু আমরা যখন সিম কিনি তখন আমাদের সেই সিমটিকে রেজিস্ট্রেশন করতে হয়। আর আমরা যখন সিম রেজিস্ট্রেশন করি তখন আমাদের ফিঙ্গারপ্রিন্ট নিয়ে নেয়। এই ফিঙ্গারপ্রিন্ট ব্যবহার করাটি বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতির মধ্যে থাকে।

বিমানবন্দরের নিরাপত্তা

বিমানবন্দরে আইরিশ বায়োমেট্রিক পদ্ধতিটি বেশি ব্যবহার করতে দেখা যায়। ই পাসপোর্ট ব্যবহার করার জন্য ও আমাদের বায়োমেট্রিক্স এর প্রয়োজন হয়ে থাকে। এছাড়াও বিমানবন্দরের আংশিক নিরাপত্তার জন্য আইরিস বায়োমেট্রিক পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

Leave a Comment