মরিশাস কাজের ভিসা ২০২৩ | মরিশাস ভিসার দাম কত | মরিশাস এ কাজের বেতন কত |

মরিশাস কাজের ভিসা ২০২৩ | মরিশাস ভিসার দাম কত | মরিশাস এ কাজের বেতন কত |

মরিশাস কাজের ভিসা ২০২৩

আপনারা অনেকেই অনেক দেশে কাজ করার জন্য যেতে আগ্রহী হয়ে থাকেন। প্রায় সকলেরই উদ্দেশ্য থাকে অন্য দেশে গিয়ে বেশি অর্থ উপার্জন করা। যে কারণে অনেকেই অনেক দেশে যেয়ে থাকেন বাংলাদেশিরা। তেমনি অনেকেই রয়েছেন যারা মরিশাস এ কাজের জন্য যেতে আগ্রহী। মূলত তারাই এই দেশ সম্পর্কে জানতে চান চলুন জেনে নেই এই দেশ সম্পর্কে।
আজকে আমরা আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করব মরিশাস কাজের ভিসা সম্পর্কে বিস্তারিত। যেমন, মরিশাস যেতে কত টাকা লাগে। বাংলাদেশীদের জন্য মরিশাসের ভিসা চালু রয়েছে কিনা সে সম্পর্কে। মরিশাস ভিসার দাম কত। মরিশাসে বাঙালিরা কত টাকা মাসিক আয় করেন সে সম্পর্কে আরো বিস্তারিত আলোচনা করব। আশা করি আপনারা সকলেই উপকৃত হবেন ইনশাআল্লাহ।

মরিশাস এর ভিসা কবে চালু হবে

আমরা সকলে অবগত রয়েছি যে করোনা মহামারীর কারণে আমাদের বাইরে যাওয়া বন্ধ ছিল। ২০২১ সাল থেকে মরিশাসের বাংলাদেশের শ্রমিক নিয়ে থাকেন তবে সেটা কিছু কিছু কাজের ক্ষেত্রে। আপনারা জেনে খুশি হবেন যে মরিশাস এ বাংলাদেশের শ্রমিক ২০২৩ এ নেওয়া সম্পূর্ণভাবে উন্মুক্ত করে দিয়েছে।
আপনি যেকোনো কাজের ক্ষেত্রে এখন বাংলাদেশ থেকে খুব সহজেই মরিশাস যেতে পারবেন।২০২১ সালের মতো কিছু কিছু ক্ষেত্রে না আপনি সকল ক্ষেত্রেই যেতে পারবেন ২০২৩ সালে। 

মরিশাস ভিসার দাম কত

মরিশাস ভিসার দাম কত এই সম্পর্কে অনেকেই জানতে আগ্রহী। কেননা আপনি যদি মরিশাস যেতে চান তাহলে আপনার সবার প্রথম ভিসার দাম সম্পর্কে জানা প্রয়োজন। তা না হলে আপনি দালাল অথবা ভুয়া এজেন্সির কাছে সর্বহারা হতে পারেন। চলুন জেনে নেই মরিশাস হিসাবে দাম কত সে সম্পর্কে।
অন্যান্য দেশের তুলনায় মরিশাসে ভিসার দাম কিছুটা কম। দুই থেকে তিন লক্ষ টাকার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই মরিশাস যেতে পারবেন। যদি পাঁচ থেকে ছয় লক্ষ টাকা কোন এজেন্সি চাই তাহলে আপনি বুঝবেন যে তারা আপনার কাছ থেকে অনেক বেশি অর্থ লুফে নিতে যাচ্ছে। 

মরিশাস যেতে কত টাকা লাগে

মরিশাস যেতে প্রায় বাংলাদেশি মুদ্রায় দুই থেকে তিন লক্ষ টাকার মতো খরচ হয়ে থাকে। আপনি মরিশাস বিভিন্ন এজেন্সি অথবা আত্মীয় স্বজনের অথবা দালালদের মাধ্যমেও যেতে পারবেন। তবে দালালদের মাধ্যমে গেলে আপনি অনেক বড় বিপদে পড়তে পারেন। ভুয়া এজেন্সির মাধ্যমে গেলেও আপনি বড় রকম বিপদে পড়তে পারেন। সুতরাং যাবার পূর্বে আপনি এজেন্সির সম্পর্কে সঠিক তথ্য নেবেন এবং বৈধ এজেন্সি এর মাধ্যমে মরিশাস অথবা অন্যান্য যে কোন দেশে যাবেন।

মরিশাস এ কাজের বেতন কত

মরিশাস এ কাজের বেতন কত এ সম্পর্কে অনেকেই জানতে আগ্রহী। কেননা আমরা সকলেই অন্য দেশে কাজ করার জন্য যাই মূলত অর্থ উপার্জন করার লক্ষ্যে। যেহেতু আমরা সকলে অর্থ উপার্জন করার লক্ষ্যে বিদেশে পাড়ি দিয়ে থাকি তাই আমাদের সকলের জানা উচিত বেতন সম্পর্কে।
মরিশাসে একজন শ্রমিক মাসিক আয় করে থাকেন প্রায় ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকার মতো। মরিশাস এ যাবার খরচ কম সেই অপেক্ষায় বেতন মোটামুটি ভাবে ঠিক বলা চলে। আপনি মূল কাজের পাশাপাশি অন্যান্য কাজ করেও আরো বেশি বেতন বৃদ্ধি করতে পারেন। কাজের উপর নির্ভর করে বেতন কমবেশি হয়ে থাকে। আশা করি আপনারা সকলে বুঝতে পেরেছেন মরিশাস এ কাজের বেতন কত সে সম্পর্কে।

মরিশাসে বাংলাদেশীদের জন্য কোন কাজের চাহিদা বেশি

উক্ত বিষয়টি সম্পর্কে আপনারা জানতে অনেক বেশি আগ্রহী হয়ে থাকেন। কেননা সেখানে গিয়ে ও আপনি এমন ধরনেরই কাজ করবেন সে কারণে। চলুন জেনে নেওয়া যাক বাংলাদেশের জন্য কোন কোন কাজের চাহিদা বেশি মরিশাসের সে সম্পর্কে।
  • বাংলাদেশ থেকে বেশি যায় গার্মেন্টস কর্মীরা কারণ সবথেকে কম খরচে বেসরকারিভাবে যাওয়া যায়।
  • বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে
  • হোটেল
  • রেস্টুরেন্ট
  • সুপার শপিং মল
  • নির্মাণ খাত
এক কথা বলা চলে আপনারা যে যে বিষয়ে দক্ষ সে সে বিষয়ে কাজ করতে যেতে পারেন। তাছাড়া আপনারা যারা কাজ জানেন না ফ্যাক্টরি এবং বিভিন্ন সুপার শপিংমলে কাজ করতে যাওয়ার সুযোগ পেতে পারেন।

মরিশাস যেতে কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন

যেকোনো দেশে যাবার ক্ষেত্রেই হোক অথবা কোন কাজের ক্ষেত্রে হোক আমাদের ডকুমেন্ট সরবক্ষেত্রে প্রয়োজন হয়। তেমনি খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ আমাদের ডকুমেন্ট। ডকুমেন্ট এর ভুল ত্রুটির কারণে আমরা অনেক সময় অনেক রকম বাধার সম্মুখে হয়। তাই আমাদের সকলের জানা উচিত ডকুমেন্ট সম্পর্কে।
  1. মরিশাস যেতে প্রথমত আপনার একটি পাসপোর্ট এর প্রয়োজন হবে।
  2. পাসপোর্ট এর মেয়াদ সর্বনিম্ন ৬ মাস থাকতে হবে অথবা তার বেশি।
  3. আপনার ভোটার আইডি কার্ডের প্রয়োজন হবে।
  4. মরিশাস যেতে হলে আপনার ব্যাংক স্টেটমেন্ট এর প্রয়োজন হবে।
  5. মেডিকেল রিপোর্ট এর প্রয়োজন হবে।
  6. পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এর প্রয়োজন হবে।
  7. করোনার টিকা কার্ড এর প্রয়োজন হবে।
মূলত এই সকল ডকুমেন্টগুলো প্রয়োজন হয় মরিশাস যেতে। যদি অন্য কোন ডকুমেন্টের প্রয়োজন হয় তাহলে আপনি যে এজেন্সির মাধ্যমে যাবেন তারা আপনাকে যাবার পূর্বেই সুন্দরভাবে সবকিছু বুঝিয়ে দেবে। আমরা আলোচনা করলাম এ কারণে যে আপনি এগুলো সম্পর্কে আগে থেকে একটু হলেও সতর্কতা অবলম্বন করতে পারবেন সে কারণে।

 লিবিয়া কাজের ভিসা 2023 | লিবিয়া টু ইতালি | লিবিয়া যেতে কত টাকা লাগে |

1 thought on “মরিশাস কাজের ভিসা ২০২৩ | মরিশাস ভিসার দাম কত | মরিশাস এ কাজের বেতন কত |”

Leave a Comment