সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা | ভিসার দাম কত | এস পাস ভিসা আবেদন |

সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা
সিঙ্গাপুর কাজের বেতন কত এ সম্পর্কে জানাটা আমাদের অত্যন্ত জরুরি একটি বিষয়। কারণ আমরা যারা সিঙ্গাপুরে কাজের উদ্দেশ্যে যেতে চায় তাদের জন্য বেতনটা অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটি জিনিস। এছাড়াও সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা কেমন হয় এবং সিঙ্গাপুর যেতে কত টাকা লাগে এ সম্পর্কে একটি ধারণা লাভ করা আমাদের জরুরি।
আজকে আমরা আমাদের এই আর্টিকেলটির মধ্যে সিঙ্গাপুর ভিসা নিয়ে কিছু তথ্য তুলে ধরার চেষ্টা করব। আমাদের এই আর্টিকেলটির মাধ্যমে আমরা আপনাদেরকে সিঙ্গাপুর ভিসা সম্পর্কিত অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এবং বিভিন্ন কোম্পানিতে চাকরির আপডেট তথ্যগুলো দেব। আপনি যদি সিঙ্গাপুর গিয়ে নিজের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে চান তাহলে অবশ্যই আমাদের এই কনটেন্টটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা কি

যে সকল কর্মী গুলা অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে কাজ করতে পারে তাদেরকে একটি বিশেষ ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়, এবং উক্ত ক্যাটাগরির নামই হলো এস পাস। এই ক্যাটাগরিতে শুধুমাত্র দক্ষ কর্মীদেরকেই নেওয়া হয়। 
সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা ক্যাটাগরির একজন কর্মীর জন্য প্রায় এক থেকে দেড় লক্ষ টাকা বেতন বরাদ্দ থাকে। তাই আপনি যদি সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা পেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে দক্ষ হতে হবে। দক্ষতা ছাড়া আপনি এস পাস ভিসা পাবেন না।

সিঙ্গাপুর এস পাস  ভিসা বেতন কত

সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা ক্যাটাগরির একজন কর্মীর জন্য প্রায় এক থেকে দেড় লক্ষ টাকা বেতন বরাদ্দ থাকে। তবে আপনার কাজের ক্যাটাগরির উপর নির্ভর করে বেতন কম বেশি হতে পারে।
আমরা ইতিমধ্যেই জেনেছি যে সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসার জন্য শুধুমাত্র দক্ষ কর্মীদেরকে নেওয়া হয়। এবং আপনার দক্ষতার উপর নির্ভর করে আপনার বেতন নির্ধারণ করা হবে। তবে সাধারণভাবে একজন এস পাস ভিসা কর্মীর বেতন ১ লক্ষ থেকে দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত হতে পারে।
এছাড়াও আপনার কাজের ক্যাটাগরি এবং কোম্পানির ওপর ভিত্তি করে আপনার বেতন বৃদ্ধি পাবে। আপনি যদি দ্রুত সময়ের মধ্যে উক্ত কাজে একটি ভালো ফলাফল পারেন তাহলে খুব শীঘ্রই বেতন বৃদ্ধি পেয়ে যাবে।

সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসার দাম কত

৭ থেকে ১২ লক্ষ টাকার মধ্যেই সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা পাওয়া যাবে । তবে বাংলাদেশে কিছু এজেন্সি রয়েছে যাদের মাধ্যমে পাঁচ থেকে সাত লক্ষ টাকার মধ্যেই সিঙ্গাপুর ভিসা পাওয়া সম্ভব। সিঙ্গাপুর কাজ করার উদ্দেশ্যে যেতে হলে প্রথমে আপনাকে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা সংগ্রহ করতে হবে।
একটি বিষয় মাথায় রাখবেন অনেক সময় অতিরিক্ত বেতনের আশায় আমরা সিঙ্গাপুর স্পেশাল সংগ্রহ করতে চাই। এজন্য অনেক মানুষের কাছে আমরা অনেক বেশি অর্থের লেনদেন করে ফেলি। যা একেবারেই ভুল এবং অনৈতিক। এ ধরনের কর্মকাণ্ডের জন্য অনেক যুবক প্রতারিত হয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছে। তাই অতিরিক্ত বেতনের আশায় অপরিচিত কারো সাথে অর্থের লেনদেন করা যাবে না।
সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা

সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা আবেদন

সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা আবেদনের জন্য প্রথমে একটি এজেন্সি বেছে নিতে হবে। বাংলাদেশে অনেকগুলো এজেন্সি রয়েছে যেখান থেকে আপনি ভিসা আবেদন করতে পারবেন। তবে হ্যাঁ এজেন্সি সম্পর্কে আগে ভালোভাবে জেনে বুঝে তারপরে আর্থিক লেনদেন করবেন। কারন বাংলাদেশ প্রচুর এজেন্সি রয়েছে যেগুলোর কোন লাইসেন্স নেই।
বেশি আবেদন করার জন্য প্রথমে আপনাকে এজেন্সির সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। উক্ত এজেন্সি ভিসা রিক্রুটমেন্ট গুলো আপনাকে জানাবে। উক্ত রিক্রুটমেন্টগুলো আপনি যদি সঠিকভাবে সংগ্রহ করতে পারেন তারপরে আপনার ভিসা আবেদন করা হবে।

তবে আপনি যদি অনলাইন সম্পর্কে কিছুটা ভালো বুঝেন তাহলে নিজে নিজেই সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসার আবেদন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনাকে একটি ব্রাউজার থেকে নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করতে হবে। এবং উক্ত ওয়েবসাইটে গিয়ে প্রতিটা তথ্য সুন্দর ও নির্ভুলভাবে সাবমিট করতে হবে।

সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসা সুবিধা

ইতিমধ্যেই আমরা জেনেছি সিঙ্গাপুরে এস পাস ভিসা কাকে বলে এবং সেখান থেকে কি ধরনের টাকা আয় করা যায়। এখন আমরা এর বেশ কিছু সুবিধা সম্পর্কে আলোচনা করব। তবে মাথায় রাখতে হবে সিঙ্গাপুর এস পাস ভিসার সুবিধা ছাড়াও বেশ কিছু অসুবিধা রয়েছে।
  • এ ধরনের ভিসায় অনেক বেশি টাকা আয় করা যায়
  • থাকা খাওয়া হয় কোম্পানি বহন করে
  • সাধারণ কাজের তুলনায় চাপ কিছুটা কম থাকে
  • ওভারটাইম কাজের বিশেষ সুবিধা থাকে
  • লাইফ ইন্সুরেন্স সহ বিমান ভাড়া পাওয়া যায়
  • দ্রুত দক্ষতা অর্জন করতে পারলে বেতন বৃদ্ধি হয়

Leave a Comment